Breaking

Monday, June 22, 2020

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্স যাত্রী পরিবহন শুরু করেছে


বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্স করোনা মহামারীর মধ্যেই বিমানে আবারো যাত্রী পরিবহন শুরু করেছে। জানা গেছে যে এরমধ্যে যারা দেশ ছাড়ছেন বা দেশে আসছেন তাদের মানতে হচ্ছে ১৪ দিনের হোম বা প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন।

আর্থিক ক্ষতি হয়েছে, প্রায় ৬ মাস বিশ্বব্যাপী লকডাউন আর যাত্রীবাহী বিমান চলাচল বন্ধ থাকায়।যে আর্থিক ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৬ মাস বিশ্বব্যাপী লকডাউন আর যাত্রীবাহী বিমান চলাচল বন্ধ থাকায়, বিমানখাত সংশ্লিষ্টরা মনে করেন তা পুষিয়ে নিতে আরো কয়েক বছর সময় লাগবে।



বিভিন্ন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের যাত্রীবাহী বিমান একে একে চালু হতে শুরু করেছে। বিমানখাত সংশ্লিষ্টরা বলেন প্রায় ৬ মাস পর একে একে চালু হতে শুরু করেছে বিভিন্ন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের যাত্রীবাহী বিমান।

জানা গেছে যে আন্তর্জাতিক রুটের ফ্লাইট জীবাণুমুক্ত করেই চালু হচ্ছে।মানতে হচ্ছে কড়া নির্দেশনা বিমানে ভ্রমণের আগে ও পরে বলেন বিমানখাত সংশ্লিষ্টরা।

চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়ায় সীমিত আকারে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই আকাশে আবারো উড়তে শুরু করেছে বোয়িং এয়ারবাসের যাত্রীবাহী বিমান।

এখন যদি করোনার দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ শুরু হয়, বিভিন্ন দেশের সরকারকে লকডাউনের বিকল্প পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাবো বলেন ''আইএটিএ মহাপরিচালক আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক''। আইএটিএ মহাপরিচালক আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক বলেন, এরইমধ্যে আমাদের অনেক বেশি লোকসান হয়ে গেছে। প্রায় ৪২ হাজার কোটি ডলার চলতি বছর লোকসান দাঁড়াতে পারে বলেন আইএটিএ মহাপরিচালক ''আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক''। ২০২১ সালে আয় ৫৩ হাজার কোটি ডলারে নিয়ে যেতে হবে বলে জানান ''আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক''। আইএটিএ মহাপরিচালক আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক বলেন কোন কোন দেশ এখনো অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচলেই সীমাবদ্ধ, সিট খালি রেখে বিমানে ভ্রমণের বিপক্ষে মত পোষণ করছে অনেক এয়ারলাইন্স।

আমাদের খুব দ্রুতই সবকিছু শুরু করতে হবে বলেন আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক। সিট খালি রেখে বিমানে ভ্রমণের বিপক্ষে মত পোষণ করছে অনেক এয়ারলাইন্স।



আমাদের খুব দ্রুতই সবকিছু শুরু করতে হবে, ধীরে ধীরে সব দেশের সীমান্তগুলো উন্মুক্ত করে দিতে হবে, কারণ আমরা সব ধরনের পূর্ব প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নামছি বলেন আইএটিএ মহাপরিচালক আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক। আইএটিএ মহাপরিচালক আলেক্সান্ড্রে দ্যা জুনায়েক বলেন, যুক্তরাষ্ট্র আর ইউরোপের এয়ারলাইন্সগুলো এরইমধ্যে লোকসানে জর্জরিত অবস্থায়। বৃহত্তম সব এয়ারলাইন্স পর্যটন ব্যবসায় ধ্বস নামায় লোকসানে কর্মী ছাঁটাইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

No comments:

Post a Comment