Breaking

Friday, July 24, 2020

জানা গেছে যে আমেরিকার স্বাস্থ্যখাতে ঋণ দেবে চীন করোনার টিকা কেনাসহ সকল কাজের জন্য।


জানা গেছে যে (বেইজিং) করোনাভাইরাসের টিকা কিনতে লাতিন আমেরিকাকে ১শ' কোটি ডলার ঋণ দিতে চায়। জানা যায় যে মেক্সিকোর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৃহম্পতিবার (২৩ জুলাই) এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে যে চীনের উদ্যোগ যে ক্যারিবীয় অঞ্চলে করোনার ভ্যাক্সিন সুলভ মূল্যে পৌঁছে দিতেই চীনের এ উদ্যোগ। বেইজিংয়ের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবিয় অঞ্চলের দেশগুলোর, জানায় মেক্সিকো। জানা গেছে যে ভার্চুয়াল বৈঠকে যুক্ত ছিলো আর্জেন্টিনা, কিউবা, ইকুয়েকডর, ডমিনিকান রিপাবলিক,চিলি, কলোম্বিয়া, কোস্টারিকা, ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো, পানামা, বারবাডোস ও উরুগুয়ে।

জানা গেছে যে চীন সরকার দেশগুলোর অর্থনীতি এবং মানুষের বাস্তুসংস্থান নিশ্চিতেও পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে। বিশ্বের ২য় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীন, এর মধ্যে লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চলে মেডিকেল টিম পাঠানো, ভ্যাক্সিনের ওপর গবেষণা বাড়ানো ও উন্নয়ন করা, খাদ্য ও কৃষিখাতে অর্থ সহায়তা দিয়ে উৎপাদন নিশ্চিত করা, জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে অবকাঠামো খাতে ঋণ করার বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে চীন সরকার। এছাড়া, স্বাস্থ্য ও খাদ্য নিরাপত্তা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধ, দারিদ্র্য বিমোচন, পরিবেশবান্ধব জ্বালানি ও ডিজিটাল অর্থনীতি উন্নয়নে ক্যারিবীয় ও লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের দেশগুলোকে সহযোগিতা করবে বিশ্বের ২য় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীন।

জানা গেছে যে ভ্যাক্সিন তৈরির প্রক্রিয়া চলমান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে,জানা যাচ্ছে যে এর মধ্যে চীনও পালন করছে সচেষ্ট ভূমিকা। জানা যাচ্ছে যে চলতি মাসের শেষেই চূড়ান্তভাবে মানবদেহে পরীক্ষা করা হবে, চীনের বায়ো-ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি সিনোভাক বায়োটেকের ভ্যাক্সিন। জানা গেছে যে চীনের বায়ো-ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি সিনোভাক বায়োটেকের করোনার ভ্যাক্সিন তৈরি করছে এমন দ্বিতীয় এবং সারাবিশ্বে তৃতীয় প্রতিষ্ঠান।
জানা গেছে যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এখন পর্যন্ত সর্বমোট ১৯টি ভ্যাক্সিন তৈরির চেষ্টা চলছে অবাক হবেন যে এর মধ্যে ৮টিই চীনে তৈরির চেষ্টা চলছে। জানা যাচ্ছে যে এরই মধ্যে মানবদেহে অকার্যকর প্রমাণিত হয়েছে সিনোভাকের একটি ভ্যাক্সিন এবং চীনা ন্যাশনাল বায়োটেক গ্রুপের একটি ভ্যাক্সিন।



এদিকে জানাআ যাচ্ছে যে ভারত একদিনে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের হিসাবে আবারও নিজেদের রেকর্ড ভাঙল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে কোভিড-১৯'এ আক্রান্ত হয়েছে ৪৯ হাজার ৩১০ জন এ খবর দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে আজ শুক্রবার (২৪ জুলাই) সকালে। জানা গেছে যে ভারতে একদিনে আক্রান্তের হিসাবে এখন পর্যন্ত এটিই সর্বোচ্চ। শুক্রবার (২৪ জুলাই) সকালে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৭৪০ জনের।

No comments:

Post a Comment