Breaking

Saturday, August 22, 2020

জানা গেছে যে দেশে করোনার টিকা কারা আগে পাবেন


জানা যাচ্ছে যে সংশ্লিষ্টরা দাবি করছেন যে করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ এর টিকা যেন আগে পাওয়া যায় সরকার সেই চেষ্টা করছে বলে দাবি করেছে সংশ্লিষ্টরা। কিন্তু পড়ে জানা যায় যে এই দাবির সঙ্গে বাস্তবের কোনো মিল নেই। জানা গেছে যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ অন্য সংস্থাগুলো সবার আগে টিকা পাওয়ার জন্য যেসব প্রস্তুতি দরকার সেই প্রস্তুতি এখনো নিতে পারেনি।

এ বিষয়ে (টিকা আসার আগে অনেক কাজ করতে হবে) এ কথা জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির অন্যতম সদস্য অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান সংবাদমাধ্যমকে বলেন। জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির অন্যতম সদস্য অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান সংবাদমাধ্যমকে আরও বলেন যে টিকা আসার আগে বিশেষ করে একটা বেজলাইন সার্ভে করা দরকার। অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান বলেন, যাতে বোঝা যায় ঠিক কতসংখ্যক মানুষের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে, কতজন মানুষের টিকা দরকার। কারণ দেখা গেছে, যাদের মৃদু সংক্রমণ হয়েছে তাদের অ্যান্টিবডি তৈরি হয়নি এই সব কথা বলেন জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির অন্যতম সদস্য অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান।

জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির অন্যতম সদস্য অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান সংবাদমাধ্যমকে বলেন আমরা কাদের টিকা দেব, সেটিও ঠিক করতে হবে। অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান সংবাদমাধ্যমকে বলেন যে যদি দেশের ২০ ভাগ মানুষের মধ্যে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হয়, তাহলে আরও প্রায় ১৪ কোটি মানুষের জন্য টিকা প্রয়োজন হবে।
কিন্তু তবে পড়ে জানা যায় যে করোনার টিকা পাওয়া নিয়ে অগ্রগতি না থাকলেও টিকা পেলে সেই টিকা কীভাবে বণ্টন হবে তা জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে মোট তিনটি ভাগে করোনার টিকা বণ্টন করা হবে বলে।

(সবার জন্য একবারে টিকা পাওয়া যাবে না) এ কথা দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিককে দেয়া সাক্ষাৎকারে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন (শুক্রবার (২১ আগস্ট)। দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিককে দেয়া সাক্ষাৎকারে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন যে পাওয়ার পর প্রথমে দেয়া হবে স্বাস্থ্যকর্মীদের, তারপর বয়স্কদের, তারপর সবার জন্য। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন যে টিকাও ধাপে ধাপে আসবে।আর সেভাবেই সারা দেশের সব মানুষের মধ্যে বিতরণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ সংক্রান্ত সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল,কিন্তু সেটি হয়নি। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন যে প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবেন। সিদ্ধান্ত জানালেই আমরা কাজ শুরু করব।


No comments:

Post a Comment